Home / খেলা / সাকিব-মুস্তাফিজ মুখোমুখি লড়াইয়ে জয় মুস্তাফিজের

সাকিব-মুস্তাফিজ মুখোমুখি লড়াইয়ে জয় মুস্তাফিজের

Shakib-Al-Hasan4

শেষ ৫ ওভারে কলকাতা নাইট রাইডার্স স্কোরবোর্ডে তুলতে পারল মাত্র ৩০ রান। প্রথম ১৫ ওভারের তুলনায় সানরাইজার্স হায়দরাবাদের জন্য এটি বড় সাফল্যই। মুস্তাফিজুর রহমান ইনিংসের ১১তম ওভারে বল করতে এসে দিলেন ৬ রান। ৪ ওভার শেষে তাঁর বোলিং বিশ্লেষণ—৪-০-৩২-১।
কিন্তু একটা আফসোস বাংলাদেশের পেস-বিস্ময়ের থাকতেই পারে। ৩২ রান যে একটু বেশিই হয়ে গেল। আসলে নিজের দ্বিতীয় ওভারে রাশটা একটু আলগা হয়ে যায় মোস্তাফিজুরের! ওই ওভারে দিয়েছেন ১৪ রান। তৃতীয় ওভারে নয় রান খরচে তুলে নিয়েছেন জেসন হোল্ডারের উইকেট। তবে শেষ ওভারটা করলেন দারুণভাবে, রান দিলেন মাত্র তিন। আজ ইডেনে পাওয়া এই উইকেটটিই মুস্তাফিজকে আইপিএলে এখনো পর্যন্ত সর্বোচ্চ উইকেট পাওয়াদের তালিকায় তুলে এনেছে দুইয়ে।
সাকিবের দল কলকাতা আগে ব্যাট করে ২০ ওভারে তুলেছে ৬ উইকেটে ১৭১ রান। যদিও সংগ্রহটা আরেকটু বড় হতেই পারত। শেষ পাঁচ ওভারে যে তারা তুলতে পেরেছে মাত্র ৩০ রান। তবু একেবারেই খারাপ করেননি কলকাতার ব্যাটসম্যানরা। অধিনায়ক গৌতম গম্ভীরের ধন্যবাদ পেতে পারেন পাবেন মনীশ পাণ্ডে ও ইউসুফ পাঠান। এই দুজন চতুর্থ উইকেটে ৮৭ রান তুলে কলকাতা টেনে নিয়েছেন সামনে। পাঠান ৫২ রানে অপরাজিত ছিলেন, পান্ডে ফিরেছেন ৫০ পূরণ হওয়ার ২ রান আগেই।
সাকিব আল হাসান ৭ নম্বরে নেমেছিলেন, কলকাতার রান তখন ১৬.৫ ওভারে ১৫৩ রান। মজার ব্যাপার, সাকিব প্রথম বলটাই খেললেন মুস্তাফিজের। পরের বলটাও খেললেন মুস্তাফিজের, তবে প্রথম দুই বলে রান পাননি। মুস্তাফিজের মুখোমুখি হয়েছেন মোট ৬ বল। দুই-একবার পরাস্তও হন। ওই ছয় বল থেকে সাকিবের রান ৪। বোঝাই যাচ্ছে চাপে ছিলেন। সেই চাপেই কি না ভূবনেশ্বর কুমারের অফ স্টাম্পের বাইরে এক কাটারে সপাটে ব্যাট চালিয়ে ধরা পড়লেন উইকেটকিপার নামান ওঝার গ্লাভসে। নামের পাশে রান মাত্র ৭।
টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই সানরাইজার্সের ওপর চাপ তৈরি করেন রবিন উথাপ্পা ও গৌতম গম্ভীর। ৩.৪ ওভারে ৩৩ রান করে বিচ্ছিন্ন তাঁরা। উথাপ্পা ১৭ বলে ২৫ করে ফেরেন সাজঘরে। গম্ভীর থেমেছেন ১৬ রানে। মনীশ পাণ্ডে আর ইউসুফ পাঠান ৮ ওভারে ৮৭ রান তুলে গড়লেন দলের ভিত্তি।
সানরাইজার্সের সফলতম বোলার ভূবনেশ্বর কুমার। ৪ ওভারে ৩১ রান দিয়ে তাঁর ২ উইকেট। এই মুহূর্তে আইপিএলে সর্বোচ্চ উইকেটশিকারি বোলার ভূবনেশ্বরই। বারিন্দর শ্রান ৩১ রানে ১ উইকেট ও দীপক হুডাও ২ উইকেট নিয়েছেন ১৬ রানে।
ব্যাটিংয়ে নেমে জবাবটা ভালোই দিচ্ছে মুস্তাফিজুরের দল। ১৪ ওভারে সানরাইজার্সের রান ৩ উইকেটে ১০৬। জয়ের জন্য ৩৬ বলে তাদের প্রয়োজন ৬৩ রান

About টাঙ্গাইল ইনফো

Check Also

আইকন সাব্বির

আইকনদের খাতায় নাম-সাব্বিরের

আইকনদের ডাক শুরু হবে বলে। ‘প্লেয়ার ড্রাফটে’ ভর করল টানটান উত্তেজনা। প্রথম নামটা কার? সাকিব, …