Home / সর্বশেষ / যমুনায় হঠাৎ পানি বাড়ায় চরাঞ্চলে ফসল নষ্ট

যমুনায় হঠাৎ পানি বাড়ায় চরাঞ্চলে ফসল নষ্ট

imagesযমুনা নদীতে আকস্মিক পানি বাড়ায় সিরাজগঞ্জের বিভিন্ন চরাঞ্চলের ফসল তলিয়ে গেছে।
জেলার চৌহালী উপজেলা প্রতিরক্ষা ও তীর সংরক্ষণ বাঁধের প্রায় দুই কিলোমিটার ধসে গেছে। ভাঙন শুরু হয়েছে শাহজাদপুর উপজেলায় এক কিলোমিটার অংশজুড়ে।
পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো), ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক ও কৃষি কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, গত রোববার রাতে বয়ে যাওয়া কালবৈশাখীর সময় নদীতে প্রবল ঢেউয়ের কারণে এ অবস্থার সৃষ্টি হয়। এদিকে পানি বাড়ায় ১০ হাজার হেক্টর জমির বাদাম ও বোরো ধান তলিয়ে নষ্ট হয়ে গেছে।
সিরাজগঞ্জ ও চৌহালী পাউবো সূত্রে জানা গেছে, গতকাল সোমবার সন্ধ্যা ছয়টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় যমুনা নদীতে প্রায় দেড় মিটার পানি বেড়েছে। আকস্মিক এই পানি বাড়ায় জেলা সদর, শাহজাদপুর, চৌহালী, কাজীপুর ও বেলকুচি উপজেলার বিস্তীর্ণ চরাঞ্চল তলিয়ে গেছে। সদর উপজেলারও বিস্তীর্ণ এলাকাসহ শতাধিক চরের প্রায় ১০ হাজার হেক্টর বাদাম ও বোরো ধান তলিয়ে গেছে।
সিরাজগঞ্জ জেলা কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের উপপরিচালক ওমর আলী বলেন, এবার নদীতে আগাম পানি আসায় বেশ কিছু জমির বোরো ধান ও বাদাম তলিয়ে গেছে।
এদিকে চৌহালী উপজেলার উত্তর সীমান্তে চেকিরমোড় থেকে দক্ষিণ দিকে খাস কাউলিয়া বালিকা উচ্চবিদ্যালয় পর্যন্ত যমুনা নদীর পূর্ব পাড়ে প্রায় দুই কিলোমিটার এলাকায় বাঁধের বালুভর্তি জিও ব্যাগ ধসে গেছে। বাঁধের নিচে চার থেকে পাঁচ মিটার অংশ দেবে গেছে। পাউবো সূত্র আরও জানায়, চৌহালী উপজেলা প্রতিরক্ষা ও তীর সংরক্ষণ বাঁধ নির্মাণের জন্য চলতি বছর ১০৯ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়। এই অর্থ দিয়ে সিসি ব্লক নির্মাণসহ অন্য কাজ শুরু করা হয়েছে। কিন্তু নদীতে আকস্মিক পানি বৃদ্ধি ও কালবৈশাখীতে সৃষ্ট ঢেউয়ের কারণে বাঁধের নির্মাণকাজ শেষ করার আগেই ধসে গেল।
সিরাজগঞ্জ পাউবোর নির্বাহী প্রকৌশলী সৈয়দ হাসান ইমাম বলেন, পানি বাড়ায় শাহজাদপুর উপজেলার দেওয়ান তারুটিয়া গ্রামের এক কিলোমিটার জুড়ে ভাঙন শুরু হয়েছে। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। এদিকে টাঙ্গাইল পাউবোর নির্বাহী প্রকৌশলী শাহজাহান সিরাজ বলেন, বাঁধের ধসে যাওয়া স্থান মেরামতের কাজ শুরু হয়েছে।
তথ্যসূত্রঃ প্রথম আলো

About Ashiq Mahmud

Check Also

thander

বজ্রপাত কেড়ে নিল ৫ জনের প্রাণ

গত কয়েক দিন ধরেই প্রচুর বৃষ্টি এবং সেই ঝড় হচ্ছে । সাথে বজ্রপাত তো আছেই …