Home / ভূতের রাজ্য / ভয় : (২য় পর্ব)

ভয় : (২য় পর্ব)

voot-30অন্যান্য দিনের মতো আজও প্রেম-রোমান্স,, রাজনীতি,, ক্রিকেট এসব নিয়েই কথা হচ্ছিলো। নানা বিষয় ঘুরে কিভাবে যেন জমজমাট আড্ডাটা ভূতের গল্পে গিয়ে ঠেকলো। এরপর দেখা গেল সেখানে উপস্থিত সবারই নিজের,, না হয় ঘনিষ্ঠ কারো প্রত্যেক্ষ বা পরোক্ষ ভূতের অভিজ্ঞতা আছে…
তারমানে এই দাঁড়াচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া এই একুশ শতকের তরুণরাও বিনা দ্বিধায় ভূতের অস্তিত্ব স্বীকার করছে…শুধু তাই নয়,নিজেরাও ভূত দেখেছে বলে দাবি করছে..
এরপর মামুনের পক্ষে আর ধৈর্য ধরে রাখা সম্ভব হয়নি.. বিজ্ঞানের এই যুগে এ ধরনের অবৈজ্ঞানিক বিষয় নিয়ে আলোচনার প্রবৃত্তি হয়নি তার..সে জন্যেই আড্ডার মাঝ পথে প্রস্থান…রিক্সার ঝাঁকুনিতে চিন্তার সুতাটা ছিঁড়ে যায় মামুনের..একটা গর্তে রিক্সার চাকা পড়ে এই বিপত্তি..কিন্তু এ কোথায় নিয়ে এসেছে রিক্সাওয়ালা? এটাতো মামুনের হলের একেবারে উল্টো রাস্তা..ইউনিভার্সিটির লাগোয়া গোরস্থান এলাকা..চরম বিরক্তি নিয়ে রিক্সাওয়ালার দিকে থাকায় মামুন..কিন্তু বেটা এমন ভাবে চাদরে মুখ ঢেকে রেখেছে, চেহারা দেখা কার সাধ্যি!!’আমি যাব মুসলিম হলে, আর তুমি আমাকে কোথায় নিয়ে আসলে??বিরক্তি নিয়েই কথাগুলো বলছিল মামুন..কিন্তু রিক্সাওয়ালার এতে কোনো ভাবান্তর নেই..আচমকা তাকে চমকে দিয়ে অদ্ভুত ফ্যাসফ্যাসে গলায় বলে উঠে,,”স্যার রিক্সা আর যাইবোনা, সামনের চাকা বইয়া গেছে”বাহ! এতো একেবারে সোনায় সোহাগা,
উল্টো রাস্তায় এনে এখন বলছ রিক্সা যাবেনা,মানে পুরা ডাবল রাস্তা হাঁটতে হবে আমাকে..
রাগের চোটে গলা চড়িয়ে কথা গুলো বলে মামুন..কিন্তু এতেও রিক্সাওয়ালার কোনো ভাবান্তর নেই..প্রচন্ড বিরক্তি নিয়ে উল্টোমুখে হাঁটা শুরু করে মামুন..
“স্যার ভাড়াটা দেবেন না?”রিক্সাওয়ালার অসস্তিকর ফ্যাসফ্যাসে কন্ঠস্বরে পেছনে তাকায়, পকেট হাতড়ে খুচরা টাকা বের করে..কিন্তু একি!!ভুসভুসে কালো চাদরের আড়াল থেকে বেরিয়ে আসে একটি অপার্থিব হাত..সাদা সাদা অস্বাভাবিক বড় আঙুলের ডগায় কালচে বাঁকানো বড় বড় নখ.. আর হাতের তালুতে এক গুচ্ছ লোম.. মাত্র কয়েক ফুট দূর থেকে রিক্সাওয়ালার অস্বাভাবিক হাতটি নিজের চোখে দেখেও বিশ্বাস করতে চাইনা মামুন..
কোনো কথা না বলে কোনো রকমে মাথা ঠান্ডা রেখে ভূতুড়ে হাতে টাকা তুলে দিয়ে জোরে পা চালায় মামুন(সংগৃহীত}

About nishivoot

Check Also

ভয় : (শেষ পর্ব)

ছুটতে ছুটতে এক সময় দম বন্ধ হয়ে রাস্তায় হুমড়ি খেয়ে পড়ে যায়… এ অবস্থায়ও কিছুটা …