Home / অন্যান্য / টাঙ্গাইলের বৃহৎ ও ক্ষুদ্র শিল্প

টাঙ্গাইলের বৃহৎ ও ক্ষুদ্র শিল্প

ertjykubgjthfrg

সেই প্রাচীনকাল থেকে অদ্যাবধি টাঙ্গাইলে শিল্প প্রতিষ্ঠান স্থাপনে কর্তৃপক্ষের অনীহা এ জেলার অর্থনীতিকে পঙ্গু করে রেখেছে। টাঙ্গাইল জেলা শিল্পায়নে প্রয়োজনীয় সম্ভাবনা ও সুযোগ থাকা সত্ত্বেও একদিকে প্রয়োজনীয় পৃষ্ঠপোষকতা এবং অন্যদিকে উদ্যোক্তার অভাবে পিছিয়ে রয়েছে। টাঙ্গাইলে প্রচুর পাট জন্মে। গোপালপুরের বিভিন্ন এলাকায় সর্বোৎকৃষ্ট পাট উৎপাদিত হয়। এছাড়া জেলার বিভিন্ন থানাগুলোতেও ভালো পাট জন্মে। কিন্তু টাঙ্গাইলে কোন চটকল নেই। টাঙ্গাইলের সুদীর্ঘ রূপালি আঁশ দেশের অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে সহায়ক হলেও একদিকে যেমন টাঙ্গাইল পাটকল থেকে পিছিয়ে রয়েছে অন্যদিকে কৃষকের পাট বিক্রিতে তেমন কোন ক্রয় কেন্দ্রও গড়ে উঠেনি। ফলে কৃষক তার উৎপাদিত পাটের ন্যায্যমূল্য থেকে বঞ্চিত।

টাঙ্গাইলে প্রচুর উন্নতমানের আখ উৎপাদিত হলেও এখানে একটি চিনিকল প্রতিষ্ঠিত হয়নি। চিনিকল প্রতিষ্ঠার জন্য উদ্যোগ নেয়া হলেও তা কার্যকরী হয়নি। জেলার সদর, ভূঞাপুর, দেরদুয়ার, নাগরপুর ও কালিহাতীতে ইদানীং প্রচুর ইক্ষু উৎপন্ন হচ্ছে।

কাপড় উৎপাদনে টাঙ্গাইল বিশেষ অগ্রণী ভূমিকা পালন করলেও আজো কোন বৃহৎ কাপড়ের মিল প্রতিষ্ঠিত হয়নি। টাঙ্গাইলের বিপুল সংখ্যক তন্তুবায়ী বন্ত্র বয়নে সুতা, রং প্রভৃতি আনতে হয় বাইরে থেকে উচ্চমূল্যে। মোট কথা টাঙ্গাইলে বৃহৎ শিল্প স্থাপনে সরকারি ও বে-সরকারি পর্যায়ে কেউ এগিয়ে আসেনি। ফলে টাঙ্গাইলে বেকারত্বের সংখ্যা তুলনামূলক দিন দিন বেড়েই যাচ্ছে।

টাঙ্গাইল জেলার সীমান্তে বে-সরকারিভাবে প্রতিষ্ঠিত হয় টাঙ্গাইল কটন মিলস্ ও ইসলাম জুট মিলস্। টাঙ্গাইল কটন মিলস্ পাকিস্তান আমলে এবং ইসলাম জুট মিলস্ দেশ স্বাধীন হবার পর প্রতিষ্ঠিত হয়। টাঙ্গাইলে বৃহত্তর শিল্প বলতে বর্তমানে এ-দুটি প্রতিষ্ঠানকেই বলা যেতে পারে।

মধুপুর, সখিপুর, মির্জাপুর, ঘাটাইলের পাহাড়ি এলাকায় প্রচুর কাঁঠাল উৎপন্ন হয়। পরিবহণ সমস্যার কারণে মৌসুমে প্রচুর কাঁঠাল পঁচে নষ্ট হয়ে যায়। জেলায় এই কাঁঠালের উপর ভিত্তি করে কাঁঠাল জুস প্রসেসের একটি শিল্প গড়ে উঠতে পারে। কিন্তু আজো তা গড়ে উঠেনি। অপরদিকে জেলার মধুপুরসহ বিভিন্ন পাহাড়ি অঞ্চলে প্রচুর আনারস উৎপন্ন হয়। মৌসুমে এই আনারস উপযুক্ত ক্রেতা ও পরিবহণের অভাবে পঁচে নষ্ট হয়। এই আনারসকে ঘিরে আনারস প্রক্রিয়াজাতকরণ একটি শিল্প গড়ে উঠার উজ্জ্বল সম্ভাবনা রয়েছে। তা আজ অবধি গড়ে উঠেনি। শীত মৌসুমে টাঙ্গাইলের বিভিন্ন এলাকায় প্রচুর শাকসব্জী, বাঁধাকপি, ফুলকপি, আলুসহ বিভিন্ন সবজি প্রচুর উৎপন্ন হয়। কিন্তু এই সবজি সংরক্ষণের জন্য আজও জেলায় কোন হিমাগার গড়ে উঠেনি। বর্তমানে জেলায় বেশ কিছু ক্ষুদ্র ও কুটিরশিল্প নিজস্ব উদ্যোগে ও ব্যাংকের আর্থিক সহায়তায় গড়ে উঠেছে। বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটিরশিল্প করপোরেশন শিল্প সহায়ক কেন্দ্র টাঙ্গাইল সূত্রে উদ্যোক্তার নিজস্ব বিনিয়োগ জেলায় বর্তমানে ১৪৩টি ক্ষুদ্র এবং ১৬৩টি কুটিরশিল্প গড়ে উঠেছে। বিসিকের মাধ্যমে ক্ষুদ্র ১০৭৭টি এবং ৪৫৯টি কুটিরশিল্পে নতুন ঋণ ব্যবস্থাকরণ করা হয়েছে। বর্তমানে বিশেষ ঋণ কর্মসূচির তহবিলের অভাব, আত্মকর্ম সংস্থান প্রকল্প কর্মসূচির চাহিদা মোতাবেক তহবিলের অভাবসহ বিভিন্ন কারণে শিল্প প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠছে না। এদিকে বর্তমানে জেলায় হাঁস মুরগি ও ডেরি ফার্মের উজ্জ্বল সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। এক্ষেত্রে কিছুটা আশার আলো দেখা দিয়েছে। ব্যক্তিগতভাবে এক্ষেত্রে অনেক লোক এগিয়ে এসেছে। বর্তমানে কয়েকটি ডেরি ফার্ম গড়ে উঠেছে।

About Ontohin

Check Also

অ্যাপলের সিইও টিম কুক এখন ভারতে

অ্যাপল কম্পিউটার ইনকরপোরেটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) টিম কুক ছিলেন চীনে। দেশটির এক নতুন ব্যবসায় …