Home / খেলা / পিএসএলেকে ঘিড়ে শুধু ‘বাংলাদেশ’

পিএসএলেকে ঘিড়ে শুধু ‘বাংলাদেশ’

pslকৌতূহলের শেষ নেই। কৌতূহল বাংলাদেশের ক্রিকেট নিয়ে। কীভাবে বাংলাদেশ এত ভালো খেলছে, বলেকয়ে হারিয়ে দিচ্ছে বড় বড় দলকে! বাংলাদেশের ধারাবাহিক এই সাফল্যের রহস্য কী?
সংযুক্ত আরব আমিরাতে পাকিস্তান সুপার লিগ (পিএসএল) খেলতে যাওয়া বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের প্রতিনিয়তই মুখোমুখি হতে হচ্ছে এমন সব মধুর প্রশ্নের। প্রশ্নকর্তারা আর কেউ নন, পিএসএলে খেলতে যাওয়া পাকিস্তানসহ অন্যান্য দেশের ক্রিকেটার-কোচরাই।
পেশোয়ার জালমির হয়ে খেলছেন তামিম ইকবাল। মুঠোফোনে নিজের অভিজ্ঞতার কথা বলতে গিয়ে বাঁহাতি ওপেনার কণ্ঠে উচ্ছ্বাস ঢেলে দিলেন, ‘আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বাংলাদেশ দল এতটা উন্নতি কীভাবে করল, তা নিয়ে সবার কৌতূহল দেখেই বেশি ভালো লাগছে। আমাদের দলের অধিনায়ক শহীদ আফ্রিদি, ব্যাটিং পরামর্শক অ্যান্ডি ফ্লাওয়ার থেকে শুরু করে সবাই জানতে চেয়েছেন আমরা কীভাবে আমাদের ক্রিকেটটাকে বদলে দিলাম।’
—তা এসব প্রশ্নের কী জবাব দেন তামিম ইকবাল?
তামিম: আমি বলি…এখনকার কোচ আসার পর খেলোয়াড়দের যেভাবে আত্মবিশ্বাসী করে তুলেছেন, সেটা একটা বড় ব্যাপার। তারুণ্য আর অভিজ্ঞতা মিলে আমাদের দলের সমন্বয় এখন অনেক ভালো। সবাই পারফর্ম করছে। এখন আমরা অনেক সেঞ্চুরি করছি, আগে হয়তো ৫০-৬০ করে আউট হয়ে যেতাম। সব মিলিয়েই উন্নতিটা হচ্ছে।
বাংলাদেশের ক্রিকেট নিয়ে সবার ইতিবাচক আগ্রহ পিএসএলটাকে আরও উপভোগ্য করে তুলেছে তামিমের জন্য। আর তাঁর ব্যাটে তো শুরু থেকেই রান। প্রথম দুই ম্যাচে ফিফটি, অপরাজিত ৫৫ রান করে দ্বিতীয় ম্যাচে ম্যান অব দ্য ম্যাচ। পরশু করাচি কিংসের বিপক্ষে ম্যাচ শেষে চার ম্যাচে ১৫৭ রান করে টুর্নামেন্টের তৃতীয় সর্বোচ্চ স্কোরার ছিলেন তামিম। সতীর্থদের প্রশংসাসিক্ত তাঁর ব্যাটিং, ‘আমার ব্যাটিং নিয়ে সবাই খুব খুশি। ওরা আমার খেলা আগে থেকেই পছন্দ করে। দল থেকে আমাকে যে রকম পরিকল্পনা দেওয়া হচ্ছে আমি সেভাবেই খেলতে পারছি।’ তামিম নিজে অবশ্য এটুকুতেই সন্তুষ্ট নন, ‘আমি মনে করি আমার পক্ষে আরও ভালো ব্যাটিং করা সম্ভব। অন্য সবকিছু উপভোগ করলেও ব্যাটিংটা আরও ভালো করতে হবে।’
স্ত্রী সন্তানসম্ভবা। তামিমের এশিয়া কাপ খেলা নিয়ে তাই অনিশ্চয়তা আছে। তবে এশিয়া কাপের পরই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। তামিম-সাকিব- মুশফিকদের জন্য পিএসএল সেটির প্রস্তুতিরও সুযোগ। তামিমের এই টুর্নামেন্টে আরও কিছু ভালো ইনিংস খেলে বিশ্বকাপের জন্য আত্মবিশ্বাসটা বাড়িয়ে নিতে চান, ‘এখন পর্যন্ত রানের মধ্যে আছি, ওটা ধরে রাখার চেষ্টা করব। তবে আমি চাই আরেকটু ভালো ব্যাটিং করতে। তাহলে আত্মবিশ্বাস আরও বাড়বে। এখন পর্যন্ত দুটি ফিফটি করলেও আমি যেভাবে খেলতে পছন্দ করি ওভাবে ব্যাটিং করতে পারলে আরও ভালো লাগবে।’
দুবাইয়ে খেলা নিয়ে খুব রোমাঞ্চিত ছিলেন। এখন তো পুরোপুরিই ঢুকে গেছেন সেই রোমাঞ্চের ভেতর। ওখানকার পরিবেশ, ক্রিকেটীয় সুযোগ-সুবিধা—তামিম সবকিছুতেই মুগ্ধ, ‘এখানে বিশ্বমানের সুযোগ-সুবিধা দিয়ে রেখেছে ওরা। বিশ্বকাপের আগে ব্রিসবেনে আমরা যেখানে অনুশীলন করেছিলাম অনেকটা ওখানকার মতোই। তবে দুবাইয়ের উইকেটে ব্যাটিং করা একটু কঠিন। সে তুলনায় শারজার উইকেট বেশ ভালো।’
পিএসএলে সব দলকেই একসঙ্গে দুবাইয়ের কনর্যাড হোটেলে রাখা হয়েছে। করাচি কিংসের দুই বাংলাদেশি সাকিব আল হাসান ও মুশফিকুর রহিমের সঙ্গে প্রতিদিনই দেখা হয় তামিমের। সুযোগ পেলে একসঙ্গে ঘুরতে যাচ্ছেন তিন ‘দেশি’। তবে ভিন্ন দলের বলে বাকি দুজনের সঙ্গে দুষ্টুমির ছলে হলেও তামিমের একটা প্রতিদ্বন্দ্বিতা থাকছে। ‘ওরা বলছিল, এই ম্যাচে হেরে যা, তাহলে আমাদের একটু সুযোগ বেড়ে যাবে। আমি বলেছি, তোরাই বরং হেরে যা…তাহলে আমরা নিশ্চিত উঠে যাব’—হাসতে হাসতে বলছিলেন পেশোয়ার জালমির হয়ে পরশু পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি রানের মালিক।
তামিমের জন্য এখন পর্যন্ত সব দিক দিয়েই টুর্নামেন্টটা উপভোগ্য। তবে ভেতরে ভেতরে একটা হতাশাও আছে, ‘মুশফিককে যে ওরা কেন খেলাচ্ছে না বুঝতে পারছি না…একটা ম্যাচ হলেও খেলানো উচিত ছিল এত দিনে।’ পরক্ষণে আশাবাদীও হচ্ছেন, ‘আমার মনে হয় পরের ম্যাচেই খেলাবে…।’ কাল অবশ্য খেলেছেন মুশফিক।
মরুর দেশে গিয়েও সাকিব-তামিম-মুশফিক একা নন। একজন আছেন অন্যজনের পাশে। আর আছে সেই মধুর প্রশ্নগুলো। যেগুলো প্রতিনিয়তই তাড়না দিচ্ছে আরও ভালো কিছু করার।

About Rakib

Check Also

ক্যাচ  ছেড়ে ম্যাচ হাড়ল-হায়দরাবাদ

ক্যাচ ছেড়ে ম্যাচ হাড়ল-হায়দরাবাদ

ক্যাচ মিস তো ম্যাচ মিস। কথাটার মর্মার্থ কাল হাড়ে হাড়ে টের পেল সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। ইনিংসের …