Home / খেলা / ‘৫০০’ গোলের অপেক্ষায় লিওনেল মেসি

‘৫০০’ গোলের অপেক্ষায় লিওনেল মেসি

‘৫০০’ গোলের অপেক্ষায় লিওনেল মেসি।।রেকর্ড ভাঙ্গা গড়ার খেলা গত কয়েক বছর ধরেই করে চলেছেন লিওনেল মেসি। বর্তমান বিশ্ব ফুটবলের সেরা তারকা দিনকয়েক আগে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে বলিভিয়ার বিপক্ষে আরেকটি রেকর্ড গড়েন। নিজ দেশ আর্জেন্টিনার জার্সিতে ‘৫০’ গোলের মাইলফলক স্পর্শ করেন দেশটির অধিনায়ক।

এবার পেশাদার ক্যারিয়ারে দেশ ও ক্লাবের হয়ে ‘৫০০’ গোলের মাইলফলক স্পর্শের হাতছানি বার্সিলোনা তারকার। বর্তমানে ৪৯৯ গোল ঝুলিতে আছে আর্জেন্টাইন অধিনায়কের। শনিবার স্প্যানিশ লা লিগার এল ক্ল্যাসিকোতে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে খেলবে বার্সিলোনা। এই ম্যাচেই ‘৫০০’ গোল করার সুযোগ পাচ্ছেন রেকর্ড সর্বোচ্চ পাঁচবারের ফিফা সেরা তারকা। মেসি নিজেও জানিয়েছেন রিয়ালের বিপক্ষে ৫০০ গোল করতে পারলে সেটা হবে দারুণ বিষয়।

গত দুই বছর এল ক্ল্যাসিকোতে গোলের দেখা পাননি মেসি। এবার তাই অপেক্ষাটা ঘোচানোরও মিশন ২৮ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ডের। অবশ্য তিনি মানুষটাই এমন, ব্যক্তিগত মাইলফলক নিয়ে কখনই ভাবেন না। ৫০০ গোল এ ম্যাচে না হোক পরের ম্যাচে তো হবেই। তবে এল ক্ল্যাসিকোতে হলে অবশ্যই ভাল। এটি আরও ভাল হবে, যদি মেসির গোল জয় এনে দেয় দলকে। এ প্রসঙ্গে মেসি বলেন, রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে এই সংখ্যাটা (৫০০ গোল) স্পর্শ করতে পারলে বিষয়টা হবে দারুণ। আমরা যদি জিতে ওদের বিপক্ষে এগিয়ে থাকার সুবিধাটা আরও এগিয়ে নিতে পারি, সেটাও হবে দারুণ কিছু।

নিজ দেশ আর্জেন্টিনার হয়ে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের প্রথম চার ম্যাচে ছিলেন না চোটের কারণে। সেই চার ম্যাচে দলও জিতেছিল মাত্র একটিতে। মেসি ফেরার পর গত দুই ম্যাচে জিতেছে দল। দুই ম্যাচেই মেসির নিজেকে উজাড় করে দেয়া চোখে পড়েছে। এ নিয়ে তাই তৃপ্ত আর্জেন্টাইন অধিনায়ক। বলেন, চিলি ও বলিভিয়ার বিপক্ষে ছয় পয়েন্ট পাওয়ায় আমি খুশি। এই দুই ম্যাচে এটাই ছিল আমাদের লক্ষ্য। আমাদের যেভাবে বরণ করে নেয়া হয়েছে সেটা দারুণ ছিল। আবারও সমর্থকেরা আমাদের সমর্থন দিয়েছেন। ২০১৪ সালের ২৩ মার্চ সর্বশেষ এল ক্ল্যাসিকোতে গোল করেন মেসি। ওই ম্যাচে অবশ্য হ্যাটট্রিক করেছিলেন। মহতী উদ্দেশ্যে নিজের বুট জোড়া দান করে মিসরের একজন রাজনীতিক ও ফুটবল কর্মকর্তার তোপের মুখে পড়েছেন বর্তমান বিশ্বসেরা ফুটবলার মেসি। মিসরের টিভি এমবিএস মাসারের ‘ইয়েস আই এ্যাম ফেমাস’ নামের একটি অনুষ্ঠানে মেসির সাক্ষাতকার ছিল। ওই অনুষ্ঠানেই চ্যারিটির জন্য নিজের বুটজোড়া দান করে অপ্রত্যাশিত সমালোচনার মুখে পড়েন তিনি। মিসরের পার্লামেন্টের সদস্য ও টিভি উপস্থাপক সাইদ হোসাইন তার নিজের টক শোতে মেসির কড়া সমালোচনা করেন। সাইদ নিজের জুতা খুলে তা দেখিয়ে আর্জেন্টিনার দরিদ্র মানুষের জন্য দান করার কথা বলেন। সাইদ বলেন, তুমি কার জুতা বিক্রি করতে চাও মেসি? এটা তোমাকে কত এনে দেবে বলে মনে কর তুমি? তুমি জানো না, মিসরের একটা শিশুর নখের দামও তোমার জুতার চেয়ে বেশি। নিজের জুতা নিজের কাছে রাখ অথবা জুতা জোড়া ইসরাইলের কাছে বিক্রি কর। উত্তেজিত হয়ে উপস্থাপক আরও বলেন, মেসি, আমরা ৯ কোটি মিসরীয়; আমাদের গর্ব আছে, জুতাও আছে। অন্যের জুতা বিক্রির টাকা দিয়ে আমরা খাই না। মেনে নিতাম, যদি সে মিসরীয়দের জন্য বার্সিলোনার জার্সিটা বিক্রি করত। কিন্তু জুতা দান? এটা সব মিসরীয়র জন্য অপমানজনক এবং আমি এটা মেনে নিতে পারি না। হয়ত মিসরীয়রা খাবার পাবে না কিন্তু তাদের গর্ব আছে।

নিজেদের সাত হাজার বছরের সভ্যতায় এভাবে কখনও মিসরীয়রা অপমানিত হয়নি বলেও দাবি করেন উপস্থাপক সাইদ। মধ্যপ্রাচ্যের সংস্কৃতিতে জুতা ছোড়াকে কাউকে অপমান করা বলে মনে করা হয়। একই টকশোতে মিসরীয় ফুটবল ফেডারেশনের মুখপাত্র আজমি মেঘাহেদও মেসির সমালোচনা করেন। তিনি বলেন, আমি দ্বিধায় আছি। যদি তার আমাদের অপমান করার উদ্দেশ্য থাকে, তাহলে আমি বলব, (মেসি) জুতাটা নিজের মাথার ওপর বা যারা তোমাকে সমর্থন করে, তাদের মাথার ওপর রাখ। আমাদের তার জুতার দরকার নেই এবং ইহুদি বা ইসরাইলের মানুষের কাছ থেকে আমাদের কোন দান পাওয়ার দরকার নেই। নিজের জুতা তুমি নিজের দেশকেই দান কর, আর্জেন্টিনা দরিদ্রতায় ভরা।

জুতা দানের বিষয়ে অপ্রত্যাশিত এই ঘটনা নিয়ে এখনও মেসির মন্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে আর্জেন্টিনার এই তারকা ফুটবলারের পাশে দাঁড়িয়েছেন মিসরের সাবেক ফরোয়ার্ড মিডো।

About Anik

Check Also

ক্যাচ  ছেড়ে ম্যাচ হাড়ল-হায়দরাবাদ

ক্যাচ ছেড়ে ম্যাচ হাড়ল-হায়দরাবাদ

ক্যাচ মিস তো ম্যাচ মিস। কথাটার মর্মার্থ কাল হাড়ে হাড়ে টের পেল সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। ইনিংসের …