Home / বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি / অ্যাপল এর ৪০ বছর

অ্যাপল এর ৪০ বছর

অ্যাপল এর ৪০ বছরস্টিভ জবস, স্টিভ ওজনিয়াক ও রোনাল্ড ওয়েনের হাত ধরে ১৯৭৬ সালের ১ এপ্রিল যাত্রা শুরু করেছিল অ্যাপল কম্পিউটার ইনকরপোরেটেড। ১ এপ্রিল যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক প্রতিষ্ঠানটির ৪০ বছর পূর্ণ হলো। দীর্ঘ এই পথপরিক্রমায় অনেক বাজারসফল পণ্য বিশ্বের কোটি কোটি ব্যবহারকারীর হাতে তুলে দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। সর্বশেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত অ্যাপলের মোট বাজারমূল্য ৬০ হাজার ১০০ কোটি ডলারের কিছু বেশি। অ্যাপলের এমন সাফল্যের চূড়ায় ওঠার পেছনের রহস্য জানতে হলে ফিরে দেখতে হবে চার দশক।

১৯৭৬ সালের বসন্তের একদিনে সাধারণ এক কম্পিউটারে কাজ করা তিন উদ্যোক্তা দেখিয়েছিলেন অসাধারণ এক স্বপ্ন। এমন এক কম্পিউটার তৈরির স্বপ্ন দেখেছিলেন, যা কম্পিউটার ব্যবহারের ধারণাকে আমূল পাল্টে দেবে। ওজনিয়াক ছিলেন উদ্ভাবক, জবস ছিলেন বিক্রেতা। সে বছরের জুলাই মাসে অ্যাপলের প্রথম কম্পিউটার ‘অ্যাপল ওয়ান’ বাজারে আসে। সাফল্যের সূত্র ধরে আসে ‘অ্যাপল টু’। ১৯৮০ সালের ভেতরেই সিলিকন ভ্যালির দাপুটে এক প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয় অ্যাপল।
কিন্তু সাফল্যের পথটা তো মসৃণ নয়। বাধা-বিপত্তি এসেছিল। স্টিভ জবসের নিয়োগ দেওয়া জন শুলির কারণেই তাঁকে অ্যাপল থেকে বেরিয়ে যেতে হয়। জবস প্রতিষ্ঠা করেন নতুন প্রতিষ্ঠান ‘নেক্সট’। ১৯৯৭ সালে প্রধান নির্বাহী হয়ে অ্যাপলে আবার ফিরে আসেন স্টিভ জবস। ২০০১ সালে গান শোনার যন্ত্র আইপড বাজারে আনে অ্যাপল। ২০০৭ সালে আসে আইফোন, ঝড় ওঠে মোবাইল ফোনের বাজারে। ২০১০ সালে অ্যাপল আনে আইপ্যাড। শেয়ারমূল্য ও মুনাফা বাড়তে থাকলেও অ্যাপলের একচেটিয়া বাজারে হানা দেয় গুগলের অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম। অ্যান্ড্রয়েড দিয়ে স্যামসাংয়ের স্মার্টফোন এবং নতুন সব ট্যাবলেট কম্পিউটার জনপ্রিয়তা পেতে থাকে। স্টিভ জবস অ্যাপলকে সাফল্যের চূড়ায় পৌঁছে দেন বটে, তবে হেরে যান ক্যানসারের কাছে ২০১২ সালে মারা যান তিনি।
এরপর শুরু হয় টিম কুকের যুগ। সাফল্যের ধারা অব্যাহত রেখে বাজারে এসেছে অ্যাপলের টিভি ও স্মার্টঘড়ি।

About Habib

Check Also

hotel

হোটেল চালু হচ্ছে মহাশূন্যে

অবাক করার মত ব্যাপার হলেও সত্যি যে মহাশূন্যে গড়ে তোলা হচ্ছে হোটেল । মহাশূন্যে কৃত্রিম …