Home / ব্যক্তিত্ত্ব / মুফাখখারুল ইসলাম

মুফাখখারুল ইসলাম

মুফাখখারুল ইসলামঃ জন্ম ৩০ এপ্রিল, ১৯২১, ঘাটাইল থানার অন্তর্গত বেনীমাধব গ্রামে। তাঁর পিতৃভূমি পার্শ্ববর্তী নূরপাড়া গ্রাম। পিতার নাম মৌলভী ময়েজ্জদ্দীন উয়ায়সী, মাতা নাজিরুন্নিসা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৪৯ সালে বাংলাভাষা ও সাহিত্যে ২য় শ্রেণীতে ১ম স্থান অধিকার করে এমএ ডিগ্রি লাভ করেন। তিনি পাবনা এডওয়ার্ড কলেজ, ঢাকা কলেজ এবং সর্বশেষ খুলনা সরকারি মহিলা কলেজে অধ্যাপনার পর অবসর গ্রহণ করেন। বহুমুখি প্রতিভার অধিকারী এই জ্ঞানতাপস একাধারে করি, প্রাবন্ধিক, ইতিহাসবিদ ও নাট্যকার। এসবের বাইরেও তিনি উয়ায়সী তরিকার একজন আধ্যাত্মিক সাধক। টাঙ্গাইলের ইতিহাস ঐতিহ্য চর্চায় মুফাখখারুল ইসলামকে প্রাণপুরুষ বলা যায়। টাঙ্গাইলের বিভিন্ন অঞ্চলে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা প্রত্নতত্ত্ব ও ইতিহাসের নানা অজানা তথ্য তিনি উন্মোচন করেছেন। তাঁর রচিত বিভিন্ন প্রবন্ধ যেমনঃ ‘টাঙ্গাইলে ইসলাম’টাঙ্গাইল জেলা সাধারণ ইতিহাস প্রসঙ্গে’ইত্যাদি প্রবন্ধের অনুসন্ধানী ব্যাখ্যায় আমরা খুঁজে পেয়েছি কালিহাতি থানার বন্দ-ই-শহর বা ভন্ডেশ্বর, ভূঞাপুরের রাজা রায়ের ভিটা, হাট সুলতান নগর, ঘাটাইলের সাগরদীঘি, ঝরোকো, গুপ্তবৃন্দাবন, দেলদুয়ার থানার আল-ই-ইয়াসীন বা এলাসিন সম্পর্কে নব-নতুন তথ্য। এছাড়া তাঁর উল্লেখযোগ্য সাহিত্যকর্মের মধ্যে, প্রবন্ধঃ ভাষা ও রচনারীতি, আল্লাহকে দেখা যায়, ইসলাম পথের বাধা, ইতিহাসের ফাঁক ও ফাঁকি, ইতিহাসগত বিভ্রান্তির রহস্য। নাটকঃ মুরশিদ (১৯৭০), আর্তনাদ (১৯৫৮), আশ্রিত (১৯৫০), ঈদের খুশি (১৯৭০), বয়াতি (১৯৭০), হকীম বুআলী সীনা সলেমান আবসাল, হেনা, আদহাম-আশিক, আল্লাহর মর্জি। একাস্কিকাঃ তোবাতুন নসুহা, মারাঠা মর্দিন, ইন্টারভিউ, এলাচিপুরের মুন্সেফ। কিশোর নাটকঃ ইমানপরখ, বড় ঈদ, প্রহরী পুত্র ও মজনু ফকির। মুফাখখারুল ইসলাম ২০০৭ সালের ২ ফেব্রুয়ারি মৃত্যুবরণ করেন।

About Ashiq Mahmud

Check Also

শামছুল হক

শামছুল হক: ১লা ফেব্রুয়ারি ১৯১৮ সালে বর্তমান টাঙ্গাইল জেলার দেলদুয়ার উপজেলার এলাসিন ইউনিয়নের শাকইজোড়া গ্রামের …