Home / ব্যক্তিত্ত্ব / ড. আলীম আল রাজী

ড. আলীম আল রাজী

fdhjgkh

ড. আলীম আল রাজীঃ ১৯২৫ সালে দেলদুয়ার থানার বরটিয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন মুন্সি নইমুদ্দিনের ঘরে। তিনি কলিকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমএ (ইতিহাস) ও বিএল পাস। লন্ডন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইতিহাস ও আইনে দু’বার পিএইচডি ডিগ্রি লাভ। এখান থেকে বার-এট-ল ডিগ্রি অর্জন। লন্ডনে অবস্থানকালে ড. রাজী লন্ডনের মুসলিম ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান নিযুক্ত হন এবং ১৯৪৯ সাল থেকে ১৯৫৫ সাল পর্যন্ত তিনি এর চেয়ারম্যান-এর দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৬৫ সাল থেকে ১৯৬৯ সাল পর্যন্ত আলীম আল রাজী তদানীন্তন পাকিস্তান জাতীয় পরিষদের সদস্য ছিলেন নির্দলীয় প্রার্থী হিসেবে। তিনি একজন দক্ষ পাল্যামেন্টারিয়ান ছিলেন। পাকিস্তান গণপরিষদে তিনি সব জোরালো বক্তব্য রাখতেন এবং তীক্ষ্ণ প্রশ্নবাণে মন্ত্রীদের ব্যতিব্যস্ত রাখতেন। সর্বজনীন ভোটাধিকার, পাল্যামেন্টারি গণতন্ত্র, পূর্ব বাংলার স্বায়ত্তশাসন, বাক, ব্যক্তি ও সংবাদপত্রের স্বাধানতার দাবিতে জাতীয় পরিষদে সোচ্চার ও আপোসহীন ভূমিকা পালন করেন। আই ব্যবসার পাশাপাশি একজন সুলেখক হিসেবে তার খ্যাতি ছিল। তিনি ১৯৭৪-৭৫ সালে বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি ছিলেন। ড. রাজীর সম্পাদনায় টাঙ্গাইল থেকে প্রকাশিত সাপ্তাহিক ‘দূরবীন’ও লন্ডন থেকে প্রকাশিত হতো ‘দি ওরিয়েন্টাল টাইমস’। তিনি ঢাকা সিটি কলেজ (১৯৫৭), নাগরপুর ডিগ্রি কলেজ (১৯৬৬) ও লাউহাটী উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা। স্বল্পকাল তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনা করেছেন। তার রচিত বইয়ের মধ্যে (১) বিশ্বনবী ও হযরত আয়েশা (রা) (২) আরাকানের পথে (৩) মোসলমানদের জেনে রাখা ভালো। ড. রাজী ১৯৬২ সাল থেকে ১৯৭৪ সাল পর্যন্ত টাঙ্গাইল জেলা সমিতির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ড. রাজী ভাসানী ন্যাপের সহ-সভাপতি পরবর্তীতে সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৮৫ সালের ১৫ মার্চ টাঙ্গাইলের এই কৃতী সন্তান মৃত্যুবরণ করেন।

About Borhan Uddin

Check Also

শামছুল হক

শামছুল হক: ১লা ফেব্রুয়ারি ১৯১৮ সালে বর্তমান টাঙ্গাইল জেলার দেলদুয়ার উপজেলার এলাসিন ইউনিয়নের শাকইজোড়া গ্রামের …